করোনার টেষ্ট না করে ভূয়া সনদ প্রদান করায় দেশ জুড়ে আলোচনার শীর্ষে রয়েছে রিজেন্ট হাসপাতাল এবং জেকেজি হাসপাতাল। এই হাপাতাল গুলোর এমন কর্মকান্ডে দুই প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান সহ অনেককেই গ্রে/ফ/তা/র করেছে প্র/শা/সন। এর মধ্যে অন্যতম একজন জেকেজি হাসপাতালের চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা। এমনকি তাকে রি/মা/ন্ডেও নিয়েছে প্র/শা/স/ন। এই রি/মা/ন্ডে অনেক তথ্য পেয়েছে প্র/শা/সন। এবং ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরী নিজেকে জেকেজির চেয়ারম্যান পরিচয় দিলেও ডি/বি/র তদন্তে এমন কোন তথ্য পাওয়া যায়নি।
করোনা পরীক্ষা জালিয়াতির মামলায় কা/রা/গা/রে থাকা ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরী নিজেকে জেকেজির চেয়ারম্যান পরিচয় দিলেও ডি/বি/র তদন্তে তা পাওয়া যায়নি। তদন্ত চলাকালেই এ বিষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছে ডি/বি/র অতিরিক্ত পু/লি/শ কমিশনার বাতেন। তিনি জানান, জেকেজির চেয়ারম্যান নয়, আহ্বায়ক হিসেবে ডা. সাবরিনার সম্পৃক্ততা পাওয়া গেছে। তার মা/ম/লা/র তদন্তের অনেক অগ্রগতি হয়েছে। এ মা/ম/লা/য় আমরা দ্রুত চার্জশিট দিতে পারব। এদিকে, জেকেজির প্র/তা/রণা মামলায় ডা. সাবরিনার কাছ থেকে যেসব তথ্য পাওয়া গেছে সেসব নিয়ে এবং জেকেজিকে অনুমোদন দেয়ার বিষয়ে ইতিমধ্যে কিছু কাগজপত্র চেয়ে ডি/বি কার্যালয়ে ডেকে আনা হয়েছে সদ্য পদত্যাগ করা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ ও অধিদফতরের বর্তমান অতিরিক্ত মহাপরিচালক (এডিজি) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানাকে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ডিবির যুগ্ম-কমিশনার মাহবুব আলম।

স্বাস্থ্যখাতে শৃঙ্খলা ফেরাতে উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এরই মধ্যে মন্ত্রণালয়ের সচিব, অতিরিক্ত সচিবসহ কয়েকজনকে বদলি করা হয়েছে। পদত্যাগ করেছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক (ডিজি) অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ। পরিচালক (হাসপাতাল ও ক্লিনিকসমূহ) ডা. আমিনুল হাসানকে সরিয়ে দেয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এ বিষয়ে বুধবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ’ডিজি (আবুল কালাম আজাদ) পদত্যাগ করেছেন। নিয়ম অনুযায়ী এটা জনপ্র/শা/স/নে গেছে। জনপ্র/শা/স/ন সিদ্ধান্ত নেবে পরবর্তী পদক্ষেপ তারা কী নেবে।’

প্রসঙ্গত, বর্তমান সময়ে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশেও প্রকোপ আকার ধারন করেছে প্রাননাশকারী কোভিড১৯ ভাইরাস। দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে একটি চক্র করোনার টেষ্ট না করে ভূয়া সনদ প্রদান করে হাতিয়ে নিয়েছে কোটি-কোরি টাকা। এবং এই ভূয়া সনদকে ঘিরে বিপাকে পড়েছে অসংখ্য মানুষ। এবং বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ও ক্ষুন্ন হয়েছে বিশ্ব দরবারে।