বাংলাদেশি খুবই জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী সানিয়া সুলতানা লিজা। বিভিন্ন স্টেজ, প্লেব্যাক, টিভি অনুষ্ঠানে গান গেয়ে দর্শকদের দারুন জনপ্রিয়তা পেয়েছেন তিনি। ২০০৮ সালে বাংলাদেশী টেলিভিশন ক্লোজআপ ওয়ান প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পরপরই গানের জগতে নিয়মিত হন তিনি। একটা কথা না বললেই নয়, বাংলার একজন জনপ্রিয় গায়ীকা হিসেবে গড়ে উঠার পেছনে যার অবদান ছিল সব থেকে বেশি তিনি হলেন তার এক শিক্ষিকা। কারন তিনি তার পরামর্শে তার বাবা তাকে ভর্তি করে দিলেন ’গৌরীপুর সঙ্গীত নিকেতন’-এ। তবে সম্প্রতি তিনি অনেক ব্যস্ত সময় পার করছেন।সব মিলিয়ে কি অবস্থা? কেমন চলছে দিনকাল? লিজা উত্তরে বলেন, ভালো আছি। তবে বেশ ব্যস্ততার মধ্যে দিয়ে সময় পার করতে হচ্ছে।
শো এর কি অবস্থা? লিজা বলেন, শো নিয়ে বছরজুড়েই ব্যস্ত থাকি। তবে শীতের মৌসুমে ব্যস্ততা বেড়ে যায়। এবারো তাই হয়েছে। গত কয়েকদিনে চট্টগ্রাম, নেত্রকোনা, নরসিংদী, ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলায় শো করলাম। সামনেও টানা শো এর ব্যস্ততা রয়েছে। আসলে আমি সরাসরি গান শোনাতে স্বাচ্ছ্বন্দ্যবোধ করি।

কারণ এর মাধ্যমে শ্রোতাদের ভালোবাসা সরাসরি পাওয়া যায়। কদিন আগে ’তোমার স্মৃতিটকু’ শীর্ষক আপনার একটি গান প্রকাশ হয়েছে। সাড়া কেমন মিলছে? লিজা বলেন, এটা আসলে সেরকম বানিজ্যিক উদ্দেশ্যে করিনি। নিজের ভালোলাগা থেকেই গানটি করা। অডিওর সঙ্গে মিল রেখে একটি সুন্দর ভিডিও করা হয়েছে। একেবারেই মনের মতো হয়েছে সব কিছু। যারাই শুনেছেন তারাই গানটি নিয়ে বেশ ইতিবাচক মন্তব্য করেছেন। গেল বছর তো বেশ কিছু গান প্রকাশ হয়েছে আপনার। প্রত্যাশা অনুযায়ী সাড়া কেমন পেয়েছেন? লিজা বলেন, গত বছর প্রকাশিত বেশিরভাগ গানই আমার নিজের বেশ পছন্দের। প্রকাশের পর দেখলাম শ্রোতাদেরও পছন্দের হয়ে গেছে। একজন শিল্পীর জন্য এর চেয়ে বড় পাওয়া কি হতে পারে। নতুন বছরের পরিকল্পনা কি? এ গায়িকা উত্তরে বলেন, নতুন বছরে ভালো মানের কিছু গান প্রকাশের ইচ্ছে রয়েছে। শ্রোতাদের পছন্দ ও আমার পছন্দ দুটিকেই প্রাধান্য দেবো।

এরইমধ্যে কিছু গানের পরিকল্পনা করেছি। সামনেই এগুলোর কাজ শুরু হবে। বছরের বিভিন্ন সময় ভিডিওসহ এ গানগুলো প্রকাশ করবো। এরমধ্যে কিছু গান আমার ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশ হবে। আর কিছু বিভিন্ন কোম্পানির ব্যানারে। আশা করছি খুব ভালো কিছু হবে। চলতি সময়ে গানের অবস্থা কেমন মনে হচ্ছে? লিজা উত্তরে বলেন, এখনতো অবস্থা মোটামুটি। খুব ভালোও না। আবার খারাপও বলা যাবে না। বিভিন্ন কোম্পানি ভালো ভালো গান প্রকাশ করছে। আবার নিজের ইউটিউব চ্যানেলেও গান প্রকাশের সুযোগ থাকছে। অনেকেই কিন্তু এখন কেবল নিজের চ্যানেলেই গান প্রকাশ করছে। এর মাধ্যমে সাড়াও মিলছে ভালো।

আবার গানের স্বত্ব নিজের কাছেই থাকছে। ডিজিটালি গান প্রকাশ হচ্ছে এখন। তবে এ ধারায় আমাদের আরো অভ্যস্ত হতে হবে। তাহলেই ইন্ডাস্ট্রি ভালোর দিকে যাবে আরো। এবার ভিন্ন প্রসঙ্গে আসি। বিয়েটা হচ্ছে কবে. লিজা বলেন, আসলে এই সময়ে আমি অনেক ব্যস্ত গান নিয়ে।

এ সময়ে তিনি এ শোতে আরও বলেন, বর্তমানে অনেক জায়গা থেকে গানের অফার আসছে। গান নিয়ে সব সময় ব্যস্ত সময় পার করতে হয়। স্টেজ, টিভি প্রোগ্রামে আমাকে নিয়মিত হতে হচ্ছে। সব মিলিয়ে এখন বিয়ে করার মতো সময় আমার হাতে একদমই নেই। যদি সময় পাই তাহলে হবে। আর তাছাড়া যখন সময় হবে তখন সবাইকে জানিয়েই বিয়ের সিদ্ধান্ত নেব।