বর্তমানে সারাবিশ্বে মহামারী আকার ধারন করেছে চীনের উহান দেশ থেকে উৎপত্তি হওয়া কভিড-১৯। যা করোনা ভাইরাসের মাধ্যমে মানুষের দেহে ছড়িয়ে থাকে। আর এ অবস্থা কিছুদিন আগে লন্ডনে পাড়ি দিয়েছিলেন ভারতীয় বাংলা সিনেমার অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী স্বানমধন্য অভিনেতা জিৎ। তবে আজ বুধবার (১৮ মার্চ) দেশে ফিরেই তারা জানিয়েছেন, আপাতত নিজেদের আইসোলেশনে রাখবেন।
বুধবার সকালে ৭টা ৪০ এর দিকে কলকাতা বিমানবন্দরে পা দেন জিৎ ও মিমি। বিমানবন্দরে দেখা যায় মুখে মাস্ক পরে ঘুরছেন জিৎ। মিমির মুখে অবশ্য মাস্ক ছিল না। বিমানবন্দরের বাইরে সংবাদমাধ্যমের সামনে নিজের অভিজ্ঞতার কথা বলেন মিমি। তিনি জানান, বিদেশ থেকে ফেরায় অবশ্যই এখন কিছুদিন নিজেকে আইসোলেশনে রাখবেন। সব রকমের সুরক্ষার ব্যবস্থা নেবেন। কারণ এই মুহূর্তে যাঁরা বিদেশ থেকে ফিরছেন তাঁদের নিজেদের আইসোলেশনে রাখার পরামর্শ দিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার। সেভাবেই নিজেদের সেলফ কোয়ারেন্টাইনে রাখবেন।

লন্ডনে এই করোনা মোকাবিলায় বিশেষ সতর্কতা তাঁর চোখে পড়েনি বলেই জানিয়েছেন মিমি। তিনি বলেন, খুব একটা কাউকে মাস্ক পরে ঘুরতে দেখা যাচ্ছিল না। তবে দুবাই বিমানবন্দরের এরকম ফাঁকা চেহারা কোনও দিন তিনি দেখেননি বলে জানিয়েছেন যাদবপুরের সাংসদ।

কয়েক দিন আগে শ্যুটিংয়ের জন্য লন্ডনে উড়ে যান মিমি। যাওয়ার আগে নিজের মাস্ক পরা একটা ছবি টুইটারে শেয়ারও করেছিলেন তিনি। সেখানে তিনি লেখেন, "কমিটমেন্টের জন্য যেতেই হচ্ছে। তবে সবরকমের সুরক্ষা নেব।" মঙ্গলবার জিৎ টুইট করে বলেন, এই করোনা ত্রাসের মধ্যে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব পুরো শ্যুটিং ইউনিট দেশে ফিরে আসবে। লন্ডনে নিজেদের পরের ছবি ’বাজি’র শ্যুটিং করতে গিয়েছিলেন জিৎ ও মিমি।

করোনা ভাইরাসের প্রকোপে সিনেমার যে ব্যাপক ক্ষতিসাধন হচ্ছে তা পূরন হওয়া সম্ভব নয়। কাকাবাবু সিরিজের তৃতীয় ছবির শ্যুটিংয়ের জন্য আফ্রিকায় রয়েছেন অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ও পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়। কিন্তু করোনা ভাইরাস এতোটাই মহামারী আকার ধারন করেছে যে তাকে এ সিনেমার সঠিং বন্ধ করে চলে আসতে হচ্ছে। বৃহস্পতিবারের মধ্যে তাঁর দেশে ফিরে আসার কথা।