কোভিড১৯ ভাইরাসের ভয়াবহ তান্ডব লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে গোটা বিশ্বে। ভাইরাসটি একাক সময় একাক দেশে মারাত্মক রুপ ধারন করে তান্ডব চালাচ্ছে। সাম্প্রতিক সময়ে প্রাননাশকারী কোভিড১৯ ভাইরাস ব্রাজিলে ব্যপক বিস্তার লাভ করেছে। এবং প্রতিদিনই বেড়েই চলছে আক্রান্ত এবং মৃ"ত্যুবরনের সংখ্যা। এবং প্রতিনিয়ত এই রেকর্ড ভেঙ্গে নতুন নতুন রেকর্ড গড়ে উঠছে।
বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ করোনা সং/ক্র/মি/ত দেশ ব্রাজিলে প্রতিদিনই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আ/ক্রান্তের সংখ্যা, দীর্ঘ হচ্ছে মৃ/ত্যুর মিছিল। বুধবার লাতিন আমেরিকার দেশটি করোনা রোগী শনাক্ত ও মৃ/ত্যু উভয় ক্ষেত্রেই গড়েছে নতুন রেকর্ড। ব্রাজিলের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, বুধবার দেশটিতে নতুন করে ৬৯ হাজার ৭৪ জন করোনা পজি/টিভ শ/নাক্ত হয়েছেন, যা এখন পর্যন্ত তাদের একদিনে রোগী শ/নাক্তের রেকর্ড। একই দিন করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন ১ হাজার ৫৯৫ জন, এটিও একদিনে মৃ/ত্যুর সর্বোচ্চ রেকর্ড। এ নিয়ে ব্রাজিলে এ পর্যন্ত ২৫ লাখেরও বেশি মানুষ করোনায় আ/ক্রান্ত হয়েছেন, মা/রা গেছেন ৯০ হাজার ১৩৪ জন।

আক্রান্ত-মৃ/ত্যুর পাহাড়ের মধ্যেই ব্রাজিলের অর্থনৈতিক কার্যক্রম পুরোদমে চালুর উদ্যোগ নিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট জেইর বোলসোনারো। দেশটির জনগণও অনেক ক্ষেত্রেই সামাজিক দূরত্ব না মেনে বিভিন্ন, বার, রেস্টুরেন্ট ও সমাবেশস্থলে জড়ো হচ্ছেন। মহামারির মধ্যে ব্রাজিলিয়ান প্রেসিডেন্ট বোলসোনারোও সামাজিক দূরত্বের বিধি না মেনে বেশ কয়েকবার সমাবেশ করেছেন। চলতি মাসে তিনি নিজেও করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। বেশ কয়েক সপ্তাহ ভুগে অবশ্য সুস্থ হয়ে উঠেছেন তিনি। তবে এর পেছনে হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের অবদান রয়েছে বলে দাবি করছেন বোলসোনারো, যদিও ম্যালেরিয়ার এ ওষুধটি কোভিড-১৯ চিকিৎসায় ঝুঁকিপূর্ণ বলে জানিয়েছেন গবেষকরা।

প্রসঙ্গত, করোনার ভীতি কোন ভাবেই কমছে না বিশ্ববাসীর মধ্যে থেকে। ভাইরাসটি দেশ ও মানুষ ভেদে জ্বীনগত পরিবর্তন করে মারাত্মক ভাবে তান্ডব চালাচ্ছে। এবং বর্তমান সময়ে গোটা বিশ্ব জুড়ে এই ভয়াবহ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ৫০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। এবং মৃ"ত্যুবরনের সংখ্যা ৬ লাখ অতিক্রম করেছে। কোন দেশই এই ভাইরাসের লাগাম টেনে রাখতে সক্ষম হচ্ছে না। তবে বিশ্বের করোনা আক্রান্ত দেশ গুলো আপ্রান ভাবে চেষ্টা করছে এই ভাইরাস প্রতিরোধের জন্য।