করোনা সংকটময় পরিস্তিতির মধ্যে কাতার সরকার প্রবাসী শ্রমিকদের জন্য এক বড় ধরেনর সুখবর দিল। মূলত ২০২২ সালের ফুটবল বিশ্বকাপ সামনে রেখে কাতার অনেক ধরনের উন্নয়নমূলক কাজ চলমান রয়েছে। এই সকল কাজ সঠিক সময়ে পরিসমাপ্তি করার জন্য এবং শ্রমিকদের কাজের ধারাবাহিকতা বজায় রাখার তাগিদে নতুন শ্রম আইন জারি করেছে দেশটির সরকার।
২০২২ সালের ফুটবল বিশ্বকাপ সামনে রেখে স্টেডিয়াম নির্মাণসহ ব্যাপক অবকাঠামো উন্নয়নের কাজ চলছে কাতারে। অভিবাসী শ্রমিকদের আরও কাজের সুযোগ করে দিতে নতুন শ্রম আইন জারি করেছে দেশটি। এতে, অনলাইনে আবেদন করে এক কোম্পানির অধীনে থেকে অন্য কোম্পানিতে কাজ করা যাবে। কাতারে অভিবাসী শ্রমিকদের জীবনমানের উন্নয়নে নতুন কাজের সুযোগ সৃষ্টির জন্য শ্রম আইন পরিবর্তন করেছে দেশটির সরকার। নতুন আইনটির ফলে এক কোম্পানির অধীনে থেকেই অন্য কোম্পানিতে করা যাবে কাজ। এই রকম কাজের সুযোগ দেয়ায় কাতার সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

কোম্পানির অনুমতি ছাড়া কাতার শ্রম মন্ত্রণালয়ে আবেদন করে প্রবাসী বাংলাদেশি শ্রমিকরা অন্য কোম্পানিতে কাজ করতে পারবেন বলে জানালেন কাতারে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের শ্রম কাউন্সিলর ড. মোহাম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান। তিনি জানান, এটি অবশ্যই আমাদের কাতার প্রবাসী শ্রমিকদের জন্য অবশ্যই সুখবর। এছাড়া, আবেদনকারীর পাসপোর্ট কপি, আইডি কপি, ছবি, চারিত্রিক সনদ, নতুন কোম্পানির সঙ্গে চুক্তিপত্র অনলাইনে জমা দিতে হবে। এছাড়া নতুন ওয়ার্ক পারমিটের জন্য আবেদন করার সময় ৫শ’ কাতারি রিয়াল ফি-ও জমা দিতে হবে।

প্রসঙ্গত, নভেল করোনা ভাইরাসের তীব্র তান্ডবে কাতার সহ বিশ্বের অসংখ্য দেশ নানা ভাবে বিভিন্ন ধরনের ক্ষতির মুখে পড়েছে। এক্ষেত্রে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসকারী প্রবাসী শ্রমিকরাও বেশ বিপাকে পড়েছে। তবে করোনায় সৃষ্ট সংকটকে উপেক্ষা করে ২০২২ সালের ফুটবল বিশ্বকাপ সামনে রেখে কাতার নানা ধরনের পদক্ষেপ গ্রহন করেছে। এবং শ্রমিকদের ও বিশেষ সুযোগ-সুবিধা প্রদান করেছে।