বর্তমান সময়ে বিশ্ব জুড়ে প্রযুক্তির ব্যবহার ব্যপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। এমনকি বিশ্বের অনেক দেশ জীবন-যাত্রার মান উন্নত করার লক্ষ্যে প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে উদ্বাবনী অনেক কিছু সৃষ্টিতে বিশেষ ভাবে কাজ কাজ করছে। এরই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি এশিয়া-প্যাসিফিকের শীর্ষ ১০টি শহরের প্রযুক্তি উদ্ভাবন কেন্দ্রের নাম উঠে এসেছে।
এশিয়া-প্যাসিফিকের শীর্ষ ১০টি শহরের মধ্যে প্রযুক্তি উদ্ভাবন কেন্দ্রে স্থান পেয়েছে মালয়েশিয়া। কেপিএমজির সর্বশেষ জরিপ অনুযায়ী, কুয়ালালামপুর নবম শীর্ষ শহর। মালয়েশিয়ার কেপিএমজির প্রযুক্তি, মিডিয়া এবং টেলিযোগাযোগ সেক্টরের প্রধান গাই অ্যাডওয়ার্ডস বলেছেন, এসব বিস্ময়কর নয় কারণ বেশ কয়েকটি গবেষণায় ইতিমধ্যে স্বীকৃত এবং চিহ্নিত করা হয়েছে যেগুলো মালয়েশিয়াকে একটি আকর্ষণীয় বিনিয়োগের সুযোগ করে দিয়েছে।

দেশের চতুর্থ শিল্প বিপ্লব নীতির মতো দেশের প্রযুক্তিগত অবকাঠামোকে এগিয়ে নেয়ার জন্য মালয়েশিয়া সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়ে গাই অ্যাডওয়ার্ডস বলেন, মালয়েশিয়া একটি উন্নয়নের কেন্দ্র হিসেবে অবশ্যই বিশ্ববাসীর আস্থা অর্জন করেছে। ১৭ আগস্ট কেপিএমজির এক বিবৃতিতে বলা হয়, সরকারি প্রেরণাই একটি প্রযুক্তি কেন্দ্র হিসেবে মালয়েশিয়ার সম্ভাবনাকে বাড়িয়ে তুলতে পারে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের তাল মিলিয়ে বাংলাদেশেও ব্যপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে প্রযুক্তির ব্যব হার। এমনকি প্রযুক্তির উদ্ভাবন ক্ষেত্রেও আ্গ্রনী ভূমিকা পালন করছে বাংলাদেশ। ইতিমধ্যে প্রযুক্তি খাতের আরও উন্নয়নের জন্য আপ্রান ভাবে কাজ করছে বাংলাদেশ সরকার।