নানা আলোচনা-সমালোচনার মধ্যে দিয়েই এগিয়ে যাচ্ছে আসন্ন ঢাকা সিটি নির্বাচন। এ নির্বাচনের শুরু থেকেই দু-দলের মধ্যেই বইছে পাল্টা-পাল্টি অভিযোগ। বিশেষ করে কিছুদিন আগে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরনবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ আসে। জানা যায়, আচরনবিধির নিষেধাজ্ঞা সত্তেও নির্বাচনী প্রচারনায় তিনি (এমপি) সাদেক খানের শরণাপন্ন হন। আর সেটাই সত্যিই হল।
নির্বাচনী প্রচারণায় এমপিদের অংশগ্রহণের ওপর নির্বাচন কমিশনের (ইসি) নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও মানছেন না অনেক সংসদ সদস্য। ১৪ জানুয়ারি (মঙ্গলবার) ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আতিকুল ইসলামের প্রচারণায় দেখা গেছে ঢাকা-১৩ আসনের আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য (এমপি) সাদেক খানকে।

এদিন বেলা ১১টায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ের শতদল কমপ্লেক্স মাঠে নির্বাচনী প্রচারণার অনুষ্ঠানের মঞ্চে দেখা যায় স্থানীয় এ এমপিকে। এ সময় বিধি-নিষেধের ব্যাপারে গণমাধ্যমকর্মীরা দৃষ্টি আকর্ষণ করলে মঞ্চ ছেড়ে উঠে যান সাদেক খান। পরে তিনি মঞ্চের পেছনে অবস্থান নেন।

তবে নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম না আসায় নির্বাচনী প্রচারণা দুপুর পৌনে ১২টা পর্যন্তও শুরু করা যায়নি। সেখানে উপস্থিত দেখা গেছে ২৮ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী মো. ফোরকান হোসেন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী হামিদা আক্তার মিতাকে।

উল্লেখ্য, এর আতিকুলের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ দায়ের করেছিলেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল। তবে এ অভিযোগের প্রেক্ষপটে তোফায়েল আহমেদ সংবাদ মাধ্যমে বলেছিলেন, আতিকুল ইসলাম কোনো আচরনবিধি লঙ্ঘন করেননি। আর তাছাড়া এমনটা আচরনবিধির কোথায়ও লেখা নেই যে তিনি এমনটা করতে পারবেন না।