প্রাননাশকারী নভেল করোনা ভাইরাসের তীব্র তান্ডবে দীর্ঘ সময় ধরে বন্ধ রয়েছে দেশের সকল সরকারি-বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এতে করে বেশ হুমকির মুখে পড়েছে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা। এমনকি শিক্ষার্থীরা পড়েছে এক অনিশ্চয়তার মধ্যে। তবে এবার দীর্ঘ সময় পর প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলার বিষয়ে পূর্ব প্রস্তুতি নেওয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়ে পরিপত্র জারি করেছে মন্ত্রণালয়।
জনস্বাস্থ্য ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলার বিষয়ে পূর্ব প্রস্তুতি নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। এ বিষয়ে বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) পরিপত্র জারি করেছে মন্ত্রণালয়। তবে বিদ্যালয়গুলো কবে খুলবে তা এখনো ঠিক হয়নি। প্রস্তুতি সংক্রান্ত এই পরিপত্রে বলা হয়েছে, জনস্বাস্থ্য ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিগগির বিদ্যালয় পুনরায় চালু করা অতীব জরুরি। একই সঙ্গে বিদ্যালয় পর্যায়ে উন্নয়ন পরিকল্পনা (স্লিপ) তহবিলের টাকায় অগ্রাধিকার ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় কেনাকাটাসহ প্রস্তুতি নিতেও এতে বলা হয়েছে।

পরিপত্রে যেসব প্রস্তুতি নিতে বলা হয়েছে, তার মধ্যে রয়েছে- শ্রেণিকক্ষসহ বিদ্যালয়ের পুরো আঙিনা ও সব আসবাবপত্র সবসময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা এবং জীবাণুমুক্ত করা। শরীরের তাপমাত্রা পরিমাপক যন্ত্র ’ইনফ্রারেড থার্মোমিটার’, সাবান, ব্লিচিং পাউডার, মগ, জগ ও বালতি ইত্যাদি কেনা, ওয়াশ ব্লক ও টয়লেট সার্বক্ষণিক পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা, অস্থায়ীভাবে হাত ধোয়ার স্থান নির্ধারণ করে হাত ধোয়ার পানি ও পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করা, প্রয়োজন হলে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার জন্য শ্রমিক নেওয়া এবং কোভিড-১৯ মেয়াদকালে ইন্টারনেট ডেটা কেনা। পরিপত্রে আরও বলা হয়, কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিদ্যালয় পুনরায় চালুর নির্দেশিকার আলোকে নিজ নিজ বিদ্যালয় স্থানীয়ভাবে পরিকল্পনা করে তা যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করবে। এর আগে গত ৩ সেপ্টেম্বর বিদ্যালয় পুনরায় চালুর প্রস্তুতি বিষয়ক নির্দেশিকা জারি করা হয়েছিল।

প্রসঙ্গত, দেশে সর্বপ্রথম করোনা ভাইরাসের দেখা মিলে ৮ই মার্চ। এরপর করোনা ভাইরাসের তীব্র সং/ক্র/ম/ণের কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছুটিতে রয়েছে। এবং সরকারের দেওয়া ঘোষনা অনুযায়ী আগামী ৩ অক্টোবর পর্যন্ত সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের নির্দেশ রয়েছে।