বর্তমান সময়ে দেশে নানা ধরনের উন্নয়নমূলক কাজ চলমান রয়েছে। দেশের বিভিন্ন জেলায় রাস্তা-ঘাট সহ ব্রিজ নির্মান হচ্ছে। তবে এক্ষেত্রে অনিয়মের শেষ নেই। প্রায় সময় রাস্তার কাজে নানা ধরনের অনিয়মের ঘটনা প্রকাশ্যে উঠে আসছে। সম্প্রতি এমনি এক নতুন অনিয়মের ঘটনা উঠে এসেছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বাঁশ দিয়ে নির্মাণ হচ্ছে ফেরিঘাটের রাস্তা।
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর মনতলা-সিতারামপুর ঘাটে ফেরি চলাচলের জন্য সম্প্রতি খনন কাজ চলছে। আর এ জন্য দুই পাড়ে ফেরিঘাটের সঙ্গে বাঁশ দিয়ে রাস্তা নির্মাণ করা হচ্ছে সংযোগ সড়ক। এ নিয়ে জনমনে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। জেলা সদরে যাতায়াতের জন্য স্থানীয় এমপি এবাদুল করিম বুলবুলের আন্তরিক প্রচেষ্টায় মনতলা-সিতারামপুর ফেরি স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়। স্থানীয়রা জানান, এভাবে রাস্তা নির্মাণ করলে মাস দুয়েকের মধ্যেই ভেঙে যাবে। আমরা চাই কাজগুলো যেনো আরও ভালোভাবে হয়। হাজী আবুল হোসেন বলেন, দুই পারের রাস্তা আরো উঁচু করতে হবে। অন্যথায় রাস্তায় টেকসই করবে না। ঢালাই এর মাধ্যমে রাস্তাটি করলে এলাকাবাসী উপকৃত হবে।

এদিকে বিআইডব্লিউটি’র সহকারী প্রকৌশলী রবিউল আলম জানান, নদীপাড়ে আরসিসি ঢালাই করা যায় না। সারাদেশে বিআইডব্লিটিএ’র যতো ফেরিঘাট নির্মাণ করে নদীর পাড়ে তা বালি দিয়ে ডেস দিয়ে এভাবে কাজ করা হয়। মূলত নরম মাটিতে বাঁশগুলো ব্যবহার করলে অতিরিক্ত লোড নিতে পারে। অর্থাৎ রডের মতো কাজ করে। এভাবেই সারাদেশে নদীর পাড়ের ফেরিঘাটের কাজগুলো সম্পন্ন করা হয়। এ ব্যাপারে নবীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) একরামুল ছিদ্দিক বলেন, সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।

প্রতিনিয়ত এক শ্রেনীর অসাধু ব্যক্তি নিজেদের সুবিধার্থে নানা ধরনের অপরাধ কর্মকান্ড পরিচালনা করছে। সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন খাতে এমন অসংখ্য সুবিধাবাধী ব্যক্তিরা রয়েছে। তাদের অপরাধের জন্যই দেশ ও জাতি নানা ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে।