বলিউড ভারতের অন্যতম একটি বিনোদন মাধ্যম। এই মাধ্যমে দীর্ঘ সময় ধরে রাজত্ব করছে মুসলিম অভিনেতারা। এদের মধ্যে খানরা অন্যতম। মূলত খানদের বলতে সালমান খান, শাহরুখ খান, আমির খান, সাইফ আলী খান, আরও কয়েক জন রয়েছে। তবে এই মাধ্যমে ধর্মীয় কোন বৈষ্যম্য রয়েছে কিনা এই বিষয়ে বেশ কিছু কথা তুলে ধরলেন বলিউড অভিনেতা নাসিরউদ্দিন শাহ।
বলিউডে কি কখনো ধর্মীয় বৈষম্যের শিকার হয়েছেন নাসিরউদ্দিন শাহ? সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমে নাসির বলেন, ’আমি জানি না বর্তমানে ইসলাম ধর্মাবলম্বী অভিনেতারা ইন্ডাস্ট্রিতে কোনো প্রকার বৈষম্যের শিকার কি না। আমি মনে করি এখানে আমাদের অবদান খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের ইন্ডাস্ট্রিতে একটিই ঈশ্বর। সেটা হল ধন। তুমি যত বেশি টাকা এনে দিতে পারবে, তোমাকে তত বেশি শ্রদ্ধা করা হবে’। এই প্রসঙ্গে বলিউডের তিন খানের উদাহরণ দিয়েছেন নাসিরুদ্দিন। ইন্ডাস্ট্রিতে বৈষম্যের শিকার হননি ঠিকই, কিন্তু ইদানীং সেখানে কিছু পরিবর্তন লক্ষ করছেন বর্ষীয়ান অভিনেতা। নাসিরুদ্দিনের কথায়, ’সরকারের হয়ে কথা বলবে, এমন ছবি তৈরি করার জন্য বেশি উৎসাহ দেওয়া হচ্ছে। সেই সব ছবি তৈরির জন্য আর্থিক সাহায্যও করা হচ্ছে’। এ প্রসঙ্গেই তিনি বর্তমানে বলিউড ইন্ডাস্ট্রির অবস্থার সঙ্গে হিটলারি জমানায় জার্মানির তুলনা করেছেন। বলেছেন, সেই সময়ও বিশ্বমানের পরিচালকদের না/ৎ/সি আদর্শ নির্ভর ছবি তৈরি করতে বলা হত।

কথার ফাঁকে এল আফ/গানি/স্তা/নের প্রসঙ্গও। কাবুলের বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে কথা বলতে গিয়ে সম্প্রতি বিপাকে পড়েছিলেন নাসিরুদ্দিন। কিছু দিন আগে ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেছিলেন, ’আফগানিস্তানে তা/লি/বা/ন শা/স/ন প্রতিষ্ঠিত হলেও বিশ্বের কাছে তা চিন্তার বিষয়। ভারতীয় মুসলিমদের একটি অংশ এই ব/র্ব/র/দের ক্ষমতায় আসার বিষয়টি উদ্‌যাপন করছে। তা যথেষ্ট বিপজ্জনক’। প্রবীণ অভিনেতার এই মন্তব্যের নিন্দা করেন অনেকেই। এরপর এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে নাসিরুদ্দিন বলেন, ’আমি তাদের কথা বলছিলাম, যারা প্রকাশ্যে তালি/বা/ন/কে সমর্থন করেন। ওরা অতীতে যা করেছে, সেটা দেখে আমাদের প্রত্যেকেরই চিন্তিত হওয়া উচিত’।

তিনি জানিয়েছেন, তালিবানের প্রতি ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের একাংশের সমর্থন দেখে তিনি ব্যথিত। এ বিষয়ে প্রকাশ্যে কথা বলার জন্য দক্ষিণপন্থীদের থেকে তিনি বাহবাও পেয়েছেন। তবে সে সব নিয়ে ভাবিত নন তিনি। নিজের অবস্থানে অনড় থেকে নাসিরুদ্দিন জানিয়েছেন, কিছু মানুষের তালি/বা/ন/কে সমর্থন করা নিয়ে তিনি যা বলেছেন, তা সঠিক। তার কথায়, ’দাবানল ছড়িয়ে পড়তে খুব বেশি সময় নেয় না’। এক সাক্ষাৎকারে নাসির জানিয়েছেন, যাদের বিরুদ্ধে প্রমাণ ছাড়াই গো-হ/ত্যা/র অভিযোগ আনা হয়েছে, মা/র/ধ/র করা হয়েছে, তাদের প্রতি তিনি সহানুভূতিশীল। তার কথায়, ’আরও চিন্তার বিষয় হল, যারা এই মানুষগুলোর ক্ষতি করেন, তাদেরকেই আবার অভিনন্দন জানানো হয়’।

দীর্ঘ সময় ধরে বলিউড ইন্ডাষ্ট্রিতে কাজ করছেন নাসিরুদ্দিন শাহ্। তিনি বেশ কয়েকটি সিনেমায় অভিনয় করেছেন। তিনি তার নিপুন অভিনয়ের জন্য পেয়েছেন ব্যপক সফলতা এবং সম্মানা। এমনকি তিনি ৩ বার ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। এছাড়াও তিনি পদ্মশ্রী ও পদ্মভূষণ পদকে ভূষিত হয়েছেন।