ঢাকা, ধরপাকড়ের পর যদি শেষ পর্যন্ত পাঁচজন লোকও সঙ্গে থাকে তাহলে তাদের নিয়ে নির্বাচনী মাঠে থাকবেন বলে জানিয়েছেন ঢাকা-৫ আসনের জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী নবী উল্লাহ নবী। সোমবার ’ধানের শীষ’ এর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর সময় নবী উল্লাহ এ কথা জানান।
শনির আখড়ার গোবিন্দপুর বাজার থেকে বেলা পৌঁনে ১১টার দিকে প্রচারণা শুরু করেন তিনি। এরপর নেতাকর্মীসহ মাতুয়াইলের বিভিন্ন স্থানে প্রচারণা চালান।
নবী উল্লাহ নবী বলেন, ’আমরা দিনে পোস্টার লাগাই রাতে তারা (আওয়ামী লীগের লোকজন) কেটে নিয়ে যায়। তাদের সঙ্গে পুলিশও গাড়ি নিয়ে আসে। সব নিয়ে চলে যায়। এই হলো তাদের লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড (সবার জন্য সমান সুযোগ-সুবিধা)।’
আওয়ামী লীগ প্রতিপক্ষ নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, ’গত পাঁচদিন ধরে আমরা গণসংযোগে নেমেছি। আওয়ামী লীগ আমাদের প্রতিপক্ষ নয়। আমাদের প্রতিপক্ষ হচ্ছে পুলিশ। অতি উৎসাহী কিছু পুলিশ আছে তারা চায় আমরা মাঠ থেকে বিদায় হয়ে যাই। তারা সরকারের নির্দেশে এই কাজ করছে।’
প্রধান নির্বাচন কমিশনারের (সিইসি) সমালোচনা করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ’প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেছেন, যাদের রাজনৈতিক মামলা আছে তাদের গ্রেফতার করা যাবে না। তবে পুলিশ নির্বাচন কমিশনারের কথার কোনো দামই দিচ্ছে না। সাংবিধানিক পদে থেকে যদি কোনো ক্ষমতা না থাকে তবে তার (সিইসি) পদত্যাগ করা উচিত।’
তিনি বলেন, ’আমার আরও ১০ হাজার লোকও যদি গ্রেফতার করা হয়, আমার সঙ্গে যদি পাঁচজন লোকও থাকে তারপরও আমি মাঠে থাকব।’
নবী উল্লাহ নবী আরও বলেন, ’ঢাকা-৫ আসনের মানুষ আমাকে ভালোবেসে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবে। ইনশাআল্লাহ আগামী নির্বাচনে জয়ী হয়ে দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে, তারেক রহমানকে বীরের বেশে আমরা বাংলাদেশে মাটিতে ফিরিয়ে আনব।’
যাত্রাবাড়ী, ডেমরা ও কদমতলী থানার আংশিক নিয়ে ঢাকা-৫ আসন। এ আসনে মোট ভোটার ৪ লাখ ৫০ হাজার ৭২৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ৩১ হাজার ৫৯২ এবং নারী ভোটার ২ লাখ ১৯ হাজার ১৩৩ জন।
আগামী ৩০ ডিসেম্বর দেশে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান মোল্লা, তার প্রতীক ’নৌকা’। ’লাঙল’ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন জাতীয় পার্টির মীর আবদুস সবুর আসুদ।
এ ছাড়া ঢাকা-৫ আসনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী মো. আলতাফ হোসেন ’হাতপাখা’, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির মো. আরিফুর রহমান ওরফে সুমন মাস্টার ’আম’, গণফোরামের এস এম আলতাফ হোসেন ’উদীয়মান সূর্য’, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির মো. আব্দুর রশিদ ওরফে আব্দুর রশিদ সরকার ’কুঁড়েঘর’, ইসলামী ঐক্যজোটের মো. আব্দুল কাইয়ুম ’মিনার’, জাকের পার্টির মো. রবিউল ইসলাম ’গোলাপ ফুল’ ও গণফ্রন্টের শামীম মিয়া ’মাছ’ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন।